Stock Market Income Taxes: A Comprehensive Guide for Investors In Bengali

/*! elementor - v3.19.0 - 05-02-2024 */ .elementor-heading-title{padding:0;margin:0;line-height:1}.elementor-widget-heading .elementor-heading-title[class*=elementor-size-]>a{color:inherit;font-size:inherit;line-height:inherit}.elementor-widget-heading .elementor-heading-title.elementor-size-small{font-size:15px}.elementor-widget-heading .elementor-heading-title.elementor-size-medium{font-size:19px}.elementor-widget-heading .elementor-heading-title.elementor-size-large{font-size:29px}.elementor-widget-heading .elementor-heading-title.elementor-size-xl{font-size:39px}.elementor-widget-heading .elementor-heading-title.elementor-size-xxl{font-size:59px}A Complete Guide to Taxation of Stock Market Income Tax /*! elementor - v3.19.0 - 05-02-2024 */ .elementor-widget-text-editor.elementor-drop-cap-view-stacked .elementor-drop-cap{background-color:#69727d;color:#fff}.elementor-widget-text-editor.elementor-drop-cap-view-framed .elementor-drop-cap{color:#69727d;border:3px solid;background-color:transparent}.elementor-widget-text-editor:not(.elementor-drop-cap-view-default) .elementor-drop-cap{margin-top:8px}.elementor-widget-text-editor:not(.elementor-drop-cap-view-default) .elementor-drop-cap-letter{width:1em;height:1em}.elementor-widget-text-editor .elementor-drop-cap{float:left;text-align:center;line-height:1;font-size:50px}.elementor-widget-text-editor .elementor-drop-cap-letter{display:inline-block} Stock মার্কেটে ইনভেস্টমেন্ট লাভজনক, কিন্তু আমাদের মনে রাখতে হবে ভারতবর্ষের কিছু Taxation Rules ও Regulations ।এই Guide টির মধ্যে আমরা Stock Market Investment সম্পর্কিত Income Tax এর বিভিন্ন Rules & Regulations সম্পর্কে আলোচনা করেছি।এই ব্লগটির মাধ্যমে আপনি Capital Gain এবং Dividend এর ওপর Taxation সম্পর্কে একটি সম্পূর্ণ  ধারণা পাবেন এবং বিভিন্ন Tax-Saving Strategies সম্পর্কেও জানতে পারবেন। Taxation of Stock Market Income Tax /*! elementor - v3.19.0 - 05-02-2024 */ .elementor-widget-image{text-align:center}.elementor-widget-image a{display:inline-block}.elementor-widget-image a img[src$=".svg"]{width:48px}.elementor-widget-image img{vertical-align:middle;display:inline-block} চলুন Stock Market Income Taxation এর Basics দিয়ে শুরু করা যাক।  Stock Market Income কি ? Stock Market Income হল যখন কোনো ব্যক্তি তার অর্জিত Share বিক্রি করে যে পরিমান Profit করে তাকে Income হিসেবে বিবেচনা করা হয়।Stock Market Income মূলত দুটি Primary Components নিয়ে গঠিত:Capital Gains:-যখন কোনো বিনিয়োগকারী Share বা Stock তার কেনা দামের থেকে বেশি দামে বিক্রি করে, এবং কেনা দাম ও বিক্রির দামের মধ্যে যে পার্থক্য থাকে তাকে Capital Gain বলে। Captial Gains কে প্রধানত দুই ভাগে ভাগ করা হয়  Short-term Capital Gains (STCG) এবং  Long-term Capital Gains (LTCG)।Dividends:- বছরের বিশেষ বিশেষ সময় কোনো কোম্পানি তার Profit র একটা অংশ তার Share Holder দের মধ্যে ভাগ করে দেয় , একেই Dividend বলে। আমাদের এবার জানতে হবে কিভাবে Share Market Income  এর  সঙ্গে Tax Applicable হয় – 1. Taxation of Capital Gains a. Short-Term Capital Gains (STCG)STCG বলতে বোঝায় যখন কোনো Stock বা Share একবছর বা তার কম সময়ের জন্য হোল্ড করে রেখে যে Profit আসে তাকে Short-Term Capital Gains (STCG) বলে।এটি কোনো ব্যক্তির ইনকাম হিসাবে Consider করা হয় , এবং Income Tax Slab Rates অনুযায়ী এটি Taxed করা হয়।b. Long-Term Capital Gains (LTCG)LTCG হলো যখন কোনো Share বা স্টক এক বছর বা তার বেশি সময়ের জন্য হোল্ড করে লাভ করা হয়। । Latest Tax Regulations অনুযায়ী, Listed Equity Shares এবং Equity-Oriented Mutual Funds এ 1 লক্ষের বেশি লাভ থাকলে কোনো Indexation Benefit ছাড়াই 10% Flat Tax কাটা হয় ৷ 2. Taxation of Dividends কোনো ব্যক্তির প্রযোজ্য Income Tax Slab Rates এর ওপর ভিত্তি করে Dividend Income Taxable হয়। যদিও 2020 সালের অর্থনৈতিক বাজেটে Dividend Distribution Tax নামে একটি নতুন ট্যাক্স চালু করা হয়, যা প্রতিটি কোম্পানির উপর লাঘু করা হয়। Stock Market Earnings এর ওপর কিভাবে Income Tax Calculate করা হয় ? Stock Market Earnings এর Tax সাধারণত Short Term ও Long Term Capital Gain র উপর নির্ভর করে।ভারতে Taxation of Capital Gains এর ওপর Income Tax:ভারতের Recognized Stock Exchange এ তালিকাভুক্ত Equity Shares থেকে Capital Gains এর ওপর Taxation নিম্নরূপ : STCGএর ক্ষেত্রে Tax Slab অনুযায়ী ফ্লাট 15% Tax Rate ধার্য করা হয়।LTCG এর ক্ষেত্রে একটি Financial Year এ যদি Profit 1 লক্ষ টাকা অতিক্রম করে যায় তাহলে 10% Flat Tax Rate হিসেবে Calculate করা হয়। তবে LTCG এর ক্ষেত্রে 1 লক্ষ টাকা পর্যন্ত করমুক্ত।Equity Shares এর LTCG Calculate করার জন্য Indexation এর কোন সুবিধা নেই। Equity Shares এর Capital Gain এর উপর কোনো Tax Deduction হয় না।Capital Gain এর হিসাবটি বিক্রয় মূল্য থেকে ক্রয়মূল্য এবং বিক্রয় সম্পর্কিত ব্যয় (যেমন Brokerage, Stamp Duty ইত্যাদি) বাদ দিয়ে করা হয়। Tax on Dividend Income: Dividend Distribution Tax (DDT): ঐতিহাসিকভাবে, Dividend প্রদানকারী কোম্পানিগুলি DDT-এর Under এ ছিল, যার অর্থ হল যে Dividends শেয়ারহোল্ডারদের কাছে পৌঁছানোর আগে Taxed করা হতো। তবে, Finance Act of 2020 লভ্যাংশ প্রাপকদের ট্যাক্স দায় (Tax Liability ) স্থানান্তর করে তা বিলুপ্ত করেছে। Tax on Dividend Income: Individual’s Applicable Income Tax Slab Rate অনুযায়ী কোনো ব্যাক্তি , Hindu Undivided Families (HUFs) এবং সংস্থাগুলির দ্বারা প্রাপ্ত Dividend Income এর উপর Tax দেওয়া হয়, Aক্ষেত্রে 15% Tax Rate এর সাপেক্ষে Dividend দেয়া হয়। Reporting Stock Market Income in Income Tax Returns: Income Tax Return দাখিল করার সময় সমস্ত  Stock Market Income সঠিকভাবে রিপোর্ট করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। অ-সম্মতি(Non- Compliance ) জরিমানা এবং আইনি (Penalties and Legal Hassles )ঝামেলার কারণ হতে পারে।কিভাবে আপনার Stock Market Income এর রিপোর্ট করা উচিত:বলে রাখা ভালো কিছু Compliance আছে যেগুলো মেনে চলতে হয় যেমন Form 15CA, 15CB, 10BA, 64D, 64CForm 15CA এবং From 15CB: 5 লক্ষ টাকার বেশি লেনদেনের জন্য, বিদেশে Fund পাঠানো বা Residential এবং Non Residentialদের মধ্যে শেয়ার আদান প্রদান করার আগে 15CA এবং 15CB অবশ্যই বৈধ হিসেবে ধরা হবে৷Form 10BA: আপনি যদি  Stock Market Activities -র সাথে সম্পর্কিত কোনও খরচ করে থাকেন তবে আপনি ফর্ম 10BA ফাইল করে Deductions Claim করতে পারেন।Form 64D and Form 64C: আপনি যদি Rs 5,000-এর বেশি Dividends পেয়ে থাকেন, তাহলে আপনাকে অবশ্যই Form 64D এবং Form 64 ব্যবহার করে রিপোর্ট করতে হবে ৷ কিভাবে আপনার Salary র সাথে Stock Market Earnings -র উপর Income Tax গণনা করবেন ? আপনার যদি একটি Financial Year এ Salary Income এবং Stock Market Earnings উভয়ই থাকে, তাহলে আপনার Gross Total Income এ পৌঁছানোর জন্য আপনাকে সেগুলিকে একত্রে যোগ করতে হবে। তারপরে আপনি Taxable কমাতে Income Tax Act এর বিভিন্ন Section যেমন Section 80C, Section 80D, Section 80G, ইত্যাদি অনুযায়ী আপনার Deductions Claim করতে পারেন। Tax-Saving Strategies for Stock Market Investments Tax Planning হলো Wealth Management এর একটি Integral Part, এবং যখন এটি Stock Market Income -র কথা আসে, তখন Tax Liabilities Minimize করার জন্য আপনি এমন বেশ কয়েকটি কৌশল ব্যবহার করতে পারেন: Tax-Saving Mutual Funds: Section 80C of the Income Tax Act-এর অধীনে Tax Deductions পেতে Equity-Linked Savings Schemes  (ELSS) এ বিনিয়োগ করুন। Holding Period Optimization: এক বছরের বেশি সময় ধরে স্টক রাখার ফলে Long-Term Capital Gains -র উপর কম Tax এর হার হতে পারে Systematic Transfer Plans (STPs): Debt Funds থেকে Equity Funds STP গুলি Tax-Efficient পোর্টফোলিওগুলিতে Rebalancing এ সহায়তা করতে পারে। Tax Harvesting: Capital এর ক্ষতির সাথে Capital Gains করা Tax Liabilities কমাতে সাহায্য করতে পারে। Dividend Reinvestment Plans (DRIPs): Dividend পাওয়ার পরিবর্তে, DRIP-কে বেছে নিন সেগুলিকে আবার বাজারে পুনঃবিনিয়োগ করুন এবং tax payments পিছিয়ে দিতে সাহায্য করবে। Form 15G/15H: যদি আপনার মোট আয় Taxable Threshold এর নিচে হয়, তাহলে আপনি আপনার Dividend Income এর উৎসে Tax এড়াতে Form 15G (For Individuals) বা Form 15H (for Senior Citizens) জমা দিতে পারেন। Taxation of Foreign Investments Foreign Investments করা ব্যক্তিদের জন্য Taxation Rules আরও জটিল হতে পারে।Double Taxation এড়াতে দুটি দেশের মধ্যে Tax Treatie এবং Foreign Tax Credit সংক্রান্ত নিয়মগুলি বোঝা  খুবই  Essential ।Conclusion:স্টক মার্কেটের Income এর ওপর Taxation বোঝা সব বিনিয়োগকারীদের জন্যই খুবই জরুরি এবং তাদের Returns Optimize করার জন্য জরুরি। Tax Savings করার জন্য Tax-Saving Strategies এবং সঠিকভাবে Income Report করার মাধ্যমে, বিনিয়োগকারীরা তাদের স্টক মার্কেটের বিনিয়োগের সর্বাধিক সুবিধা করতে পারে।Tax Law সময়ের সাথে সাথে পরিবর্তিত হয়ে থাকে  , তাই এই বিষয়ে সবসময় Updated  থাকা জরুরি এবং প্রয়োজনে Financial Advisors বা Tax Professional দের কাছ থেকে Guidance নিন যাতে আপনি Tax Requirements মেনে চলার সাথে সাথে আপনার বিনিয়োগগুলি সফলভাবে করতে পারেন।

Stock Market Income Taxes: A Comprehensive Guide for Investors

A Complete Guide to Taxation of Stock Market Income Tax Investing in the stock market can be a lucrative venture, but it also comes with tax obligations that every investor must understand. Taxation of stock market income is a complex area that demands careful attention to detail to ensure compliance with the law while maximizing returns. In this guide, we will walk you through the various aspects of income tax related to stock market investment from understanding capital gains and dividends to tax-saving strategies. Taxation of Stock Market Income Tax Before we proceed further, let’s start with the basics of stock market income taxation. What is Stock Market Income? Stock market income refers to the profits earned by an individual through buying and selling of stocks, securities, or other financial instruments in the stock market. It comprises two primary components:Capital Gains:When an investor sells a stock or security at a price higher than the purchase price, the difference is known as capital gains. Capital gains can be classified into Short-term Capital Gains (STCG) and Long-term Capital Gains (LTCG) based on the holding period.Dividends:Companies often distribute a portion of their profits to shareholders in the form of dividends. Dividend income is an essential part of stock market income.Now we understood about what stock market income entails. Let’s explore how it is taxed. 1. Taxation of Capital Gains a. Short-Term Capital Gains (STCG) STCG refers to gains arising from the sale of stocks or securities held for one year or less. Such gains are added to the individual’s total income and taxed according to the applicable income tax slab rates.b. Long-Term Capital Gains (LTCG)LTCG arises from the sale of stocks or securities held for more than one year. As of the latest tax regulations, LTCG on listed equity shares and equity-oriented mutual funds exceeding INR 1 lakh is subject to a flat tax rate of 10% without indexation benefit. 2. Taxation of Dividends Dividend income is taxable as per the individual’s applicable income tax slab rates. However, in the Union Budget 2020, a new system of taxation was introduced. Companies are now liable to pay Dividend Distribution Tax (DDT), and the dividend received by investors is exempt from tax. How is income tax calculated on stock market earnings? The tax treatment of your stock market earnings depends on whether they are short-term or long-term in nature.Income Tax on Taxation of Capital Gains in India:The taxation of capital gains from equity shares listed on a recognized stock exchange in India is as follows:STCG are taxed at a flat rate of 15%, irrespective of your tax slab.LTCG are taxed at a flat rate of 10%, but only if they exceed Rs.1 lakh in a financial year. LTCG up to Rs. 1 lakh are exempt from tax.There is no benefit of indexation for calculating LTCG from equity shares. There is no tax deducted at source (TDS) on capital gains from equity shares.The calculation of capital gain is done by deducting the purchase price and the expenses related to the sale (such as brokerage, stamp duty, etc.) from the sale price. Tax on Dividend Income: Dividend Distribution Tax (DDT):Historically, companies paying dividends were subject to DDT, which meant that dividends were taxed before they reached the shareholders. However, the Finance Act of 2020 abolished DDT, shifting the tax liability to the recipients of dividends. Tax on Dividend Income: Dividend income received by individuals, Hindu Undivided Families (HUFs), and firms is now taxed as per the individual’s applicable income tax slab rate. For domestic companies, dividends are subject to a 15% tax rate. Reporting Stock Market Income in Income Tax Returns: It is crucial to report all stock market income accurately while filing income tax returns. Non- compliance can lead to penalties and legal hassles.Here’s how you should report your stock market income:Form 15CA and Form 15CB: For transactions exceeding INR 5 lakhs, Form 15CA and Form 15CB must be furnished before remitting funds abroad or transferring shares between residents and non- residents.Form 10BA: If you have incurred any expenses related to stock market activities, you can claim deductions by filing Form 10BA.Form 64D and Form 64C: If you have received dividends exceeding INR 5,000, you must report the same using Form 64D and Form 64C. How to calculate income tax on stock market earnings along with your salary?  If you have both salary income and stock market earnings in a financial year, you need to add them together to arrive at your gross total income. You can then claim deductions under various sections of the Income Tax Act, such as Section 80C, Section 80D, Section 80G, etc., to reduce your taxable. Tax-Saving Strategies for Stock Market Investments Tax planning is an integral part of wealth management, and when it comes to stock market income, there are several strategies you can employ to minimize tax liabilities:Tax-Saving Mutual Funds: Invest in Equity-Linked Savings Schemes (ELSS) to avail of tax deductions under Section 80C of the Income Tax Act.Holding Period Optimization:Holding stocks for over a year can result in lower tax rates on long- term capital gains.Systematic Transfer Plans (STPs):STPs from debt funds to equity funds can help in tax-efficient portfolio re-balancing.Tax Harvesting:Offsetting capital gains with capital losses can help in reducing tax liabilities.Dividend Reinvestment Plans (DRIPs): Instead of receiving dividends, opt for DRIPs to reinvest them back into the market and defer tax payments.Form 15G/15H:If your total income is below the taxable threshold, you can submit Form 15G (for individuals) or Form 15H (for senior citizens) to avoid tax deduction at source on your dividend income. Taxation of Foreign Investments For individuals holding foreign investments, the taxation rules can be more intricate. It is essential to understand the tax treaties between countries and the rules regarding foreign tax credits to avoid double taxation.ConclusionUnderstanding the taxation of stock market income is essential for all investors to stay compliant and optimize their returns. By carefully considering tax-saving strategies and reporting income accurately, investors can make the most of their stock market investments.As tax laws can change over time, it’s advisable to stay updated and, if necessary, seek guidance from financial advisors or tax professionals to ensure you’re making the most of your investments while adhering to tax requirements.

Paytm Payments Bank নিষিদ্ধ করল RBI ! মার্কেটে চলছে বিভ্রান্তি

একটি স্টক তার Recent High থেকে 60% এর বেশি ক্র্যাশ করেছে এবং মার্কেটে কোম্পানিটিকে  নিয়ে বিভিন্ন গুঞ্জন শুরু হয়েছে । হ্যাঁ, আপনি ঠিকই অনুমান করেছেন, আমরা PAYTM এর কথা বলছি।29 ফেব্রুয়ারি থেকে Paytm Payments Bank আর New User -দের গ্রহণ করতে সক্ষম হবে না, এমনকি Existing Users-রাও এই তারিখের পরে Paytm Wallets, Fastags, এবং Mobility Cards  ব্যবহার করতে পারবেন না। নিষেধাজ্ঞাটি অন্যান্য ব্যাঙ্কিং পরিষেবাগুলিতে Funds Transfer, UPI, এবং Immediate Payment Services এর ক্ষেত্রে Extend করা হয়েছে। তবে টাকা Withdrawals Facility অব্যাহত থাকবে।এই ঘোষণার পর, Paytm Payments Bank Limited (PPBL) যা One97 Communications Limited (OCL) এর সাথে যুক্ত, সম্প্রতি একটি বড় ধাক্কার সম্মুখীন হয়েছে, মাত্র 3 দিনে এর স্টক প্রায় 42% Fall করেছে!কেন Paytm এর Share Fall করেছে? কেন পেটিএম পেমেন্টস ব্যাঙ্ককে নিষিদ্ধ ঘোষণা করল আরবিআই ?  পেটিএম পরিষেবা কী বন্ধ  হতে চলেছে ? Paytm নিয়ে বাজারে যে গুজব চলছে তা কি সত্যি? সংক্ষেপে জানতে আমাদের আজকের ব্লগটি পড়ুন। RBI এর Directive : Non-compliance এবং Material Supervisory এর কারণে RBI ,Paytm-কে সব ধরনের ব্যাঙ্কিং পরিষেবা দেওয়া থেকে নিষিদ্ধ করেছে। Paytm Payments Bank, 29 ফেব্রুয়ারি থেকে আর নতুন ব্যবহারকারীদের গ্রহণ করতে পারবে না, এমনকি Existing User রাও এই তারিখের পরে Paytm Wallets, Fastags,এবং Mobility Cards ব্যবহার করতে পারবেন না, তবে টাকা Withdrawals Facility অব্যাহত থাকবে। PAYTM বারবার RBI-এর Guidelines Violate করেছে: এই প্রথমবার নয় যে Paytm, Regulatory Guidelines লঙ্ঘন করেছে।  জুন 2018-এ, RBI এর একটি অডিট এ KYC প্রক্রিয়া সংক্রান্ত সমস্যার কারণে Paytm Payments Bank কে নতুন গ্রাহকদের অনবোর্ড করতে নিষেধ করেছিল। এছাড়াও, 2021 সালের অক্টোবর মাসে RBI 1 কোটি টাকা জরিমানাও করেছিল। 2023 সালের অক্টোবর মাসে licensing Guidelines এবং সাইবার Security ব্যবস্থার সাথে Misrepresentation And Non-compliance এর জন্য 5 কোটি টাকার জরিমানা করা হয়েছিল। 2022 সালের মার্চ মাসে, ক্রমাগত Non-compliance Issues -র কারণে ব্যাঙ্ককে অবিলম্বে অন-বোর্ডিং বন্ধ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। 2023 সালের নভেম্বরে, RBI, ব্যাঙ্ক এবং NBFC গুলিকে ভোক্তা ঋণের ঝুঁকি 25% পয়েন্ট বাড়িয়ে 125% করার নির্দেশ দেয়। ফলস্বরূপ, Paytm-কে তার ‘Buy Now, Pay Later’ পরিষেবাগুলি বন্ধ করতে হয়েছিল এবং 50,000 টাকার নিচে তার লোনের এক্সপোজার কমাতে হয়েছিল। বিখ্যাত ইনভেস্টমেন্ট হাউসের সাম্প্রতিক Activities: Paytm এর Inconsistent Cash Flow এবং Loss-making প্রকৃতির কারণে ইতিমধ্যেই অনেক বিনিয়োগকারীদের খারাপ নজরে ছিল। Paytm এর Inconsistent Cash Flow এবং Loss-making প্রকৃতির কারণে ইতিমধ্যেই অনেক বিনিয়োগকারীদের খারাপ নজরে ছিল।NSE ডেটা অনুসারে, Warren Buffet এর মালিকানাধীন Berkshire Hathaway এর BH International Holdings সম্প্রতি 600 কোটি টাকার Loss নিয়ে Paytm থেকে Exit করেছে। BH International Holdings 24 নভেম্বর একটি বড় Block Deal এ ₹877.29 এর Average Stock Price এ প্রায় 1,370 কোটি টাকা মূল্যের 1.56 কোটি শেয়ার বিক্রি করেছে।এই সম্পর্কে INVESMATE সম্প্রতি একটি Short Video প্রকাশ করেছে : Watch Video শেয়ার দর Fall করার পরে অতি সম্প্রতি Paytm-এ সাম্প্রতিক কিছু Bullish Activity ও পরিলক্ষিত হয়েছে।NSE ডেটা অনুসারে, Morgan Stanley Asia (Singapore) PTE 2রা ফেব্রুয়ারি, 2024-এ একটি Bulk Deal এর মাধ্যমে 487.20 টাকা মূল্যে Paytm-এর 0.79% শেয়ার কিনেছে। বাস্তব ঘটনা ও গুজব: একটি সুপরিচিত মিডিয়ার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে যে JFSL ও HDFC Bank, Paytm এর Wallet Business কেনার জন্য এগিয়ে রয়েছে। Jio Financial Services Ltd (JFSL) সোমবার এই খবর অস্বীকার করেছে। একটি Regulatory Filing এ সংস্থাটি বলেছে যে, “আমরা স্পষ্ট করে জানাচ্ছি যে, সংবাদটি অনুমানমূলক, এবং আমরা এই বিষয়ে কোনও আলোচনাই করিনি ৷ Paytm আরও স্পষ্ট করেছে যে খবরটি “অনুমানমূলক, ভিত্তিহীন এবং বাস্তবসম্মতভাবে ভুল” বিনিয়োগকারীরা যারা IPO তে Paytm এর শেয়ার কিনেছেন তারা প্রায় 77% Loss এর  সম্মুখীন হয়ে রয়েছেন। VIJAY SHEKHAR, Managing Director, PAYTM Company -র Marketing এবং Financial Services Business গুলি RBI Directions এর কারণে Affected হয়নি।কিছু Operational Change এর প্রয়োজনীয় শুরু হয়েছে।আমরা বিশ্বাস করি যে অন্যান্য Bank এর সাথে Partnership এর মাধ্যমে আগামী কিছু দিন/কোয়ার্টারের মধ্যে এটি সম্পূর্ণ করতে সক্ষম হব। INVESMATE ইতিমধ্যেই “PAYTM” এর Business Analysis করে একটি ভিডিও তৈরি করেছে, আপনি এই লিঙ্কের মাধ্যমে ভিডিওটি দেখতে পারেন Watch Video Paytm সম্পর্কে আপনার  কি ধারণা? নীচে কমেন্ট করে আমাদের অবশ্যই জানান ।

RBI Clampdown: Paytm Bank Shutting Down – What Next?

A stock has crashed more than 60% from its recent high and the market is buzzing. Yes, you guessed it right, we are talking about PAYTM.Effective February 29, Paytm Payments Bank will no longer be able to accept new users, and even the existing users will be unable to utilise Paytm wallets, Fastags, and mobility cards after this date. The ban extends to other banking services, such as the transfer of funds, UPI, and immediate payment services. However, withdrawals will be possible.After that announcement, Paytm Payments Bank Limited (PPBL) is associated with One97 Communications Limited (OCL), faced a major blow recently as a result, its stock plummeted around 42% in just 3days!Why paytm share price crashed? Why RBI banned paytm payments bank? What is the Future of Paytm Bank? Are the rumors going on in the market about Paytm true? Read our today’s blog to know in brief. RBI's Directive The RBI banned Paytm from offering all forms of banking services due to issues of non-compliance and material supervisory concerns. Paytm Payments Bank will no longer be able to accept new users from February 29, and even the existing users will be unable to utilize Paytm wallets, Fastags, and mobility cards after this date, withdrawals will be possible. PAYTM Violated RBI’s Guidelines Repeatedly: This is not the first time Paytm has flouted regulatory guidelines. In June 2018, an RBI audit prohibited Paytm Payments Bank to onboard new customers due to KYC process issues.Further, RBI had also imposed a penalty of Rs 1 crore in October 2021Rs 5 crore in October 2023 for misrepresentation and non-compliance with licensing guidelines and cyber security measures.In March 2022, the bank was again directed to cease on-boarding immediately due to continued non-compliance issues.In November 2023, RBI instructed banks and NBFCs to increase the risk weightage on consumer credit by 25 percentage points to 125%. As a result, Paytm had to halt its ‘buy now, pay later’ services and reduce its loan exposure below Rs 50,000. Recent Activities of Famous Investment Houses: This is not the first time Paytm has flouted regulatory guidelines. Paytm was already in the bad books of many investors due to its inconsistent cash flow and loss-making nature. According to NSE Data, Warren Buffet-owned Berkshire Hathaway’s BH International Holdings booked loss of Rs 600 crore and exits from Paytm. BH International Holdings sold 1.56 crore shares worth nearly ₹1,370 crore at an average share price of ₹877.29, in a large block deal on November 24. Regarding this INVESMATE has published a Short Video recently, You may watch via this link watch video While some recent Bullish Activity was also being observed in Paytm. According to NSE Data, Morgan Stanley Asis( Singapore) PTE bought 0.79% stake of Paytm at a price of Rs 487.20 in a Bulk Deal on 2nd February, 2024. FACT & RUMORS: A report from a well-known media stated that JFSL and HDFC Bank were front runners to buy Paytm’s wallet business. Jio Financial Services Ltd (JFSL) late on Monday denied reports saying that it was in talks with Paytm to acquire its wallet business. In a regulatory filing, the company said, “We clarify that the news item is speculative, and we have not been in any negotiations in this regard.Whereas “Paytm also clarified that the news was “speculative, baseless and factually incorrect” Investors who bought Paytm shares in the IPO would have faced a 77% loss to date. Management View: VIJAY SHEKHAR, Managing Director, PAYTM Company’s Marketing and Financial Services Businesses are not affected due to RBI Directions.Work has started for some Operational Change required.We believe to be able to complete this in next few days/quarters through partnership with other Banks.It is not possible to know in advance what we can and cannot do, RBI has not yet sent us any details about the action. INVESMATE has already made a Detail Analysis Video on "PAYTM". You may go through this link to watch the video: watch video What are your thoughts on Paytm? Please let us know by Commenting below.

Union Budget এর বিভিন্ন Components

Uninon Budget’  শব্দটি  মূলত ভারত সরকারের বার্ষিক আর্থিক বিবৃতিকে বোঝায়। এটি সাধারণ বাজেট নামেও পরিচিত।সংবিধানের 112নং  অনুচ্ছেদের অধীনে, 1লা এপ্রিল থেকে 31শে মার্চ পর্যন্ত চলা প্রতিটি আর্থিক বছরে ভারত সরকারের আনুমানিক প্রাপ্তি এবং ব্যয়ের একটি বিবৃতি সংসদে পেশ করা হয় ।“বার্ষিক আর্থিক বিবৃতি”  বা “Annual Financial Statement” নামের এই বিবৃতিটি হল মূল  বাজেটের  নথি। Union Budget এর কাঠামো: ভারতের কেন্দ্রীয় বাজেট, বা বার্ষিক আর্থিক বিবৃতি,  প্রধানত তিনটি অংশ নিয়ে গঠিত Consolidated Fund Contingency Fund এবং Public Account Consolidated Fund: ভারতের Consolidated Fund হল সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সরকারি অ্যাকাউন্ট। সরকার কর্তৃক প্রাপ্ত রাজস্ব এবং এর দ্বারা করা ব্যয় (ব্যতিক্রমী কযেকটি items ছাড়া), Consolidated Fund এর অংশ। মূলত সংসদের অনুমোদন ছাড়া এই তহবিল থেকে কোনো Fund  withdrawn করা যাবে না। Contingency Fund: এর নাম থেকে বোঝা যায় যে এটি একটি  জরুরী ব্যবহারের জন্য তহবিল।  উদাহরণস্বরূপ বলা যেতে পারে যেকোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগ এবং যেকোনো জরুরী  অবস্থা মোকাবিলার জন্য অর্থের প্রয়োজন তা এই তহবিল থেকে  যায় ।  বর্তমানে সংসদ কর্তৃক অনুমোদিত Contingency Fund এর   corpus এখন 30,000 কোটি টাকা। Public Account: পাবলিক অ্যাকাউন্টের মধ্যে এমন কিছু fund  অন্তর্ভুক্ত রয়েছে যা সরকারের অন্তর্গত নয় এবং কোনো কোনো সময় বা নির্দিষ্ট ব্যক্তি বা কর্তৃপক্ষর কাছে  জমা করা সেই অর্থ ফেরত দিতে হয়। সরকার একটি “ব্যাঙ্কার” হিসাবে কাজ করে, উদাহরণস্বরূপ বলা যায় provident funds, ক্ষুদ্র সঞ্চয় সংগ্রহ, এবং অন্যান্য আমানত ইত্যাদি সম্পর্কিত লেনদেন করাই  প্রধান কাজ।  বাজেটের মূল উপাদানগুলি হল: দেশের অর্থনৈতিক নীতি গঠনে কেন্দ্রীয় বাজেট অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা গ্রহণ করে। এটি সরকারের priority গুলি তুলে ধরে, বিভিন্ন খাতে সম্পদ বরাদ্দ করে এবং অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য নীতি নির্ধারণ করে।এটি আমাদের জানতে সাহায্য করে যে সরকার গত বছরে কতটা revenue collect   করেছে এবং আগামী financial yearএ কতটা ব্যয় করতে পারবে । Union Budget দুটি অংশ নিয়ে গঠিত: Revenue Budget Capital Budget Revenue Budget:  Revenue Budget মূলত ভারত সরকারের প্রাপ্ত  আয়  এবং সেই আয় কতটা ব্যবহার করে  ব্যয় করা যাবে তা নিয়ে গঠিত।  Revenue Budgetএ  সরকারের কাছে যে উৎস থেকে আয় হচ্ছে সেই সম্পর্কে  বিবরণ দেয়।  Capital Budget:  এই অংশটি সরকারের মূলধন প্রাপ্তি এবং ব্যয়ের সাথে সম্পর্কিত। মূলধন প্রাপ্তি বলতে –  যেমন বিনিয়োগ, ধার নেওয়া, সরকারী বা বিদেশী সরকার থেকে ঋণ নেওয়া ,RBI ইত্যাদি। এছাড়া  মূলধন ব্যয়ের ক্ষেত্রে – যেমন রাস্তার উন্নয়ন , infrastructure, স্বাস্থ্য সুবিধা ইত্যাদির ক্ষেত্রে উন্নয়নে ব্যয় করা। বাজেটের উদ্দেশ্য: বাজেট Policy: Budget policy  নীতি বলতে equity বা surplus বাজেট চালানোর সরকারি প্রচেষ্টাকে বোঝায়।  এর উদ্দেশ্য হল সরকারি ঋণ কমানো। এটি fiscal policy এর  মতো নয়, এটি অর্থনীতিতে fiscal stimulus হিসেবে কাজ করে ,এছাড়া Tax এর redistribution এবং যেকোনো ভাতার ক্ষেত্রে ছাড়  দেওয়ার সাথে সম্পর্কিত। সরকার এই policy  মূলত গ্রহণ করে আসন্ন Budget  প্রণয়নের সময়।    বাজেট নীতি নির্ধারণ করা হয় সরকারের আয় এবং ব্যয়  পরিকল্পনার মাধ্যমে  এবং আগামী চার বছরে প্রত্যাশিত national ও international অর্থনৈতিক উন্নয়নের মাধ্যমে। সরকারী আয় এবং ব্যয় : সরকার যখন কোনো কার্যভার গ্রহণ করে তখন প্রকৃত অর্থে তা যতদিন চলবে তার পুরো  মেয়াদের (চার বছর পর্যন্ত হতে পারে ) অর্থ ব্যয় নির্ধারণ করে। এই ব্যয়গুলি প্রধানত তিনটি খাতের সাথে যুক্ত : কেন্দ্রীয় সরকারের মন্ত্রণালয়, সামাজিক নিরাপত্তা এবং  তার যত্ন।কেন্দ্রীয় সরকারের খরচের  বৃহত্তর অংশ Tax থেকে finance করা হয়। সামাজিক নিরাপত্তা এবং তার  যত্ন  করার জন্য খরচের অংশ বেশিরভাগটাই প্রধানত  বিভিন্ন অনুদান থেকে finance করা হয় (যেমন বেকারত্ব বীমা এবং চিকিৎসা ক্ষেত্রে বীমার জন্য ব্যয়)।  কেন্দ্রীয় সরকারের আয়ের মধ্যে রয়েছে: বিভিন্ন Taxes ( যা আয়ের প্রধান উৎস); প্রাকৃতিক গ্যাসের থেকে আয় ; বেসরকারী উদ্যোগে রাষ্ট্রীয় হোল্ডিং থেকে আয়/লাভ; জরিমানা বা Fines। বাজেটের প্রকারভেদ - 3 প্রকারের বাজেট সম্পর্কে দেওয়া হলঃ Basically Financial stability আসে মূলত একটি বাজেটের মাধ্যমে। প্রতিটি সরকারের কাজ করার জন্য বাজেটের প্রয়োজন।  এই Budget এর তৈরীর মাধ্যমেই স্থির হয় যে  কিভাবে বিভিন্ন খাতের মধ্যে public funds গুলি বরাদ্দ করা হবে। সহজভাবে,আসলে  বাজেট একটা রোড-ম্যাপের মতো  কাজ করে যা সরকারকে তার উদ্দেশ্য পূরণের জন্য কীভাবে তার  আয়ের সংস্থান গুলি বরাদ্দ করতে হবে  সে সম্পর্কে একটা Basic Direction দেয়।  নিচে তিনটি ভিন্ন স্তরের বাজেটের সংক্ষিপ্ত বিবরণ দেওয়া হল: Balanced Budget Surplus Budget Deficit Budget Balanced Budget: একটি Balanced budget মানে আশানুরূপ আয়ের সাথে  প্রত্যাশিত একটা ব্যয়ের তাল মেল রেখে চলা। এককথায়, একটি Balanced budget এর উদ্ভব  তখনই হয় যখন সরকারের প্রত্যাশিত ব্যয় সেই নিদিষ্ট financial year এর  প্রত্যাশিত মোট  আয়ের সাথে মিলে যায়। অনেক classical Economists দের এই দৃষ্টিভঙ্গি অনুযায়ী, “সাধ্যের মধ্যে জীবনযাপন” ধারণার উপর জোর দেওয়া উচিত। তারা বিশ্বাস করেন যে, একটি  সরকারের ব্যয় তার আয়ের ক্ষেত্রে আয়নার মতো হওয়া উচিত।এই বাজেট পদ্ধতির লক্ষ্য হল অর্থনীতিতে সামঞ্জস্য বজায় রাখা, আর্থিক শৃঙ্খলাকে  মেনে চলা, অত্যধিক ঋণ গ্রহণ প্রতিরোধ করা এবং সুদের  জন্য অর্থপ্রদানের বোঝা কমানো। তবে , অর্থনৈতিক মন্দা বা মুদ্রাস্ফীতির সময়, একটি Balanced budget কখনোই  অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতার নিশ্চয়তা দিতে পারে না। Theotically অনুমান করা ব্যয় এবং আয়ের মধ্যে ভারসাম্য বজায় রাখা সহজ, কিন্তু বাস্তবে, এটি করা  খুবই চ্যালেঞ্জিং।একটি Balanced budget এর গুণাবলী: অর্থনৈতিক stability নিশ্চিত করে, যদি সফলভাবে বাস্তবায়িত হয়। নিশ্চিত করে যে সরকার অযৌক্তিক ব্যয় থেকে বিরত থাকবে।  Balanced budget এর ত্রুটি`:  মন্দার সময়ে অব্যবহারযোগ্য এবং বেকারত্বের মতো সমস্যার কোনো সমাধান দেয় না। স্বল্পোন্নত দেশে প্রযোজ্য নয় কারণ এটি অর্থনৈতিক বৃদ্ধির সুযোগকে সীমিত করে দেয় । সরকারকে জনকল্যাণে ব্যয় করতে বাধা দেয়। 2. Surplus budget: ই বাজেটে আনুমানিক সরকারি আয় আনুমানিক সরকারি ব্যয়ের চেয়ে কয়েকগুণ বেশি। এটি রাষ্ট্রের পাবলিক ঋণ কমাতে বা সঞ্চয় বাড়াতে কাজ করে। মুদ্রাস্ফীতির সময়ে, একটি সরকার সামগ্রিক চাহিদা কমাতে এবং অর্থনৈতিক  stability আনার জন্য এই বাজেটের ধরনকে বেছে নিতে পারে। এটি budget management, বিচক্ষণতার সাথে সম্পদ বরাদ্দ এবং ধার ছাড়াই ভবিষ্যতের প্রকল্পে বিনিয়োগের জন্য দেশের পরিকাঠামোকে  তুলে ধরে। বৈশিষ্ট্য: অর্থনৈতিক মন্দার সময়  অনেক কিছু cover up  হিসেবে করার কাজ করে। বিদ্যমান ঋণ পরিশোধে সাহায্য করতে পারে। Deficit Budget: এই বাজেটের ক্ষেত্রে  আনুমানিক সরকারের আয়  সরকারের প্রদত্ত ব্যয়ের চেয়ে কম হয় ।তবে Deficit Budgetএর বেশকিছু  সুবিধাও রয়েছে যেমন- এটি অর্থনৈতিক বৃদ্ধিকে stimulate করে, infrastructure গুলিতে investment করতে বা গুরুত্বপূর্ণ প্রয়োজনগুলিকে সমাধান করতে সহায়তা করতে পারে।ভারতের মতো দেশগুলির জন্য ক্রমশ আর্থিক বিকাশের জন্য প্রচেষ্টা করার ক্ষেত্রে এই ধরনের Financial বাজেটগুলি খুবই উপকারী হিসেবে প্রমাণিত হয়। ব্যয় বৃদ্ধি করে, একটি সরকারের demand বাড়ায়, এবং এইভাবেই  অর্থনৈতিক বিকাশকে  পুনরুজ্জীবিত করে তোলে । এই বাজেটের আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ দিক রয়েছে employment generete করার ক্ষেত্রে, ফলস্বরূপ পণ্য এবং পরিষেবার চাহিদাও  বৃদ্ধি পায়। Deficit Budget এর গুণাবলী:  অর্থনৈতিক মন্দার সময়ে বেকারত্বের মতো বিষয়ে  জনসাধারণের উদ্বেগ মোকাবেলায় সহায়তা করে। সরকারকে জনকল্যাণে ব্যয় করতে সক্ষম করে।Deficit Budget এর ত্রুটি:  সরকার কর্তৃক অযৌক্তিক খরচ করাবৃদ্ধি পেতে পারে। এ ক্ষেত্রে ঋণ  জমা হলে সরকারের উপর বোঝা বৃদ্ধি পায়। বিভিন্ন পদের মূল সংজ্ঞা: Fiscal Deficit মোট আয় এবং ব্যয়ের প্রাপ্তি নির্ণয় করে, এছাড়া loans ও advance গুলি পুনরুদ্ধার করা এবং loan এর বাইরে মূলধন জোগাড় করার মধ্যে পার্থক্য তৈরী করে। Revenue Deficit আয় ও ব্যয়ের মধ্যে তারতম্য বজায় রাখে। Primary Deficit রাজস্ব উপাদানের অধীনে ''Interest Payments এবং Debt Servicing'-এর Primary Deficit এর প্রধান component। Budget Deficit মোট ব্যয় এবং মোট আয়ের প্রাপ্তির মধ্যে পার্থক্য নির্ণয় করে এবং monetization এর সময় মোট আয় ও ব্যয় শূন্য হতে হবে। monetization routesগুলির ক্ষেত্রে সরকারের কোনও access থাকে না এবংসেই ক্ষেত্রে Budget deficit zero হওয়া উচিত। Miscellaneous Capital Receipts (MCR) non-debt capital receipts হিসাবে গণ্য করা হয়। Finance Bill এ নতুন taxes এর জন্য আরোপ করা, existing tax এর কাঠামোর পরিবর্তন বা আইনসভা দ্বারা অনুমোদিত সময়ের বাইরে existing tax কাঠামো অব্যাহত রাখার জন্য সরকারের প্রস্তাবগুলি follow করা। কেন্দ্রীয় সরকারের কয়েকটি Composition: কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী পরিষদের জন্য  রাষ্ট্রপতি, উপ-রাষ্ট্রপতি এবং মন্ত্রিপরিষদ গঠিত হয় এবং রাষ্ট্রপতিকে সাহায্য ও পরামর্শ দেওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী প্রধান ভূমিকা পালন করে ।কেন্দ্রীয় সরকারের এই তিনটি শাখা বিভিন্ন দায়িত্বের সাথে যুক্ত, কিন্তু সংবিধানও পরস্পরের ওপর নির্ভরতার ন্যায্য মাত্রা মূল্য দেয় ।

UNION BUDGET-Various Components

The term “Union Budget” refers to the annual financial statement of the government of India. It is also known as the General Budget.Under Article 112 of the Constitution, a statement of estimated receipts and expenditure of the Government of India has to be laid before Parliament in respect of every financial year which runs from 1st April to 31st March.This statement titled as “Annual Financial Statement” is the main Budget document. The Structure of Union Budget Consolidated Fund, Contingency Fund and Public Account. Consolidated Fund: Consolidated Fund of India is the most important government accounts. Revenues received by the government and expenses made by it (excluding exceptional items), are part of the Consolidated Fund. No amount can be withdrawn from the Fund without authorization from Parliament. Contingency Fund: As its name implies, is a fund for emergency use – for instance, a natural calamity – and money is required to deal with it. The corpus of the Contingency fund as authorized by Parliament presently stands at 30,000 crores. Public Account: The Public Account includes funds that do not belong to the Government and have to be paid back some time or the other to the persons and authorities who deposited them. Government acts more as a “banker”, for example, transactions relating to provident funds, small savings collections, other deposits, etc. Components of a Budget The Union Budget is crucial in shaping the economic policies of the country. It reflects the government’s priorities, allocates resources to various sectors, and sets the direction for economic development. It helps us to know how much revenue the govt has collected in the last year and how much it will be spending in the coming fiscal year. The Union Budget comprises two parts: Revenue Budget Capital Budget Revenue Budget: The revenue budget consists of Revenue Receipts of the Government of India and the expenditure met using that revenue. The revenue budget details the sources from where the revenue is coming to the government. Capital Budget: This part deals with the capital receipts and expenditures of the government. Capital receipts – like disinvestment, borrowing, loans from public or foreign governments, RBI etc. And capital expenditure – like expenditure on development of Roads, infrastructures, health facilities etc. Objectives of Budget: Budgetary Policy Budget policy refers to government attempts to run a budget in equity or in surplus. The aim is to reduce the public debt.It is not the same as a fiscal policy, which deals with the fiscal stimulus to the economy, the re-partition of taxes and the generosity of allowances. It is the policy which governments adopt while formulating budget.Budgetary policy is determined by the government’s expenditures and revenues plans and expected national and international economic developments over the next four years. Government Expenditure and Revenue The government sets the expenditure for its entire term of office (four years) in real terms when it takes office. The expenditure relates to three sectors: central government (the ministries), social security and care.The greater part of central government expenditure is financed from taxes. Social security and care expenditure is funded chiefly from contributions (e.g. for unemployment insurance and exceptional medical expenses insurance). Central government Revenue consists of: taxes (main source of revenue) natural gas revenue income/profits from state holdings in private enterprises; fines Types of Budgets Financial stability is facilitated by a budget. Every government needs budgets to function. They dictate how public funds are allocated between numerous sectors. Simply, the budget is like a road-map that guides the government on how to allocate its resources to meet its objectives. The following is a brief description of the three different budget types: Balanced Budget Surplus Budget Deficit Budget Balanced Budget: A balanced budget means projected revenue matches expected expenses. Simply put, a balanced budget emerges when the government’s projected spending matches its expected income in a specific financial year. Many classical economists support this view, emphasizing the idea of “living within means.” They believe that the government’s expenses should mirror its revenue.This budgetary approach aims to strike harmony in the economy, promote fiscal discipline, prevent excessive borrowing, and reduce the burden of interest payments. However, during economic depression or deflation, a balanced budget might not guarantee economic stability. In theory, it is simple to strike a balance between projected expenses and income, but in actual practice, this is challenging to do.Merits of a Balanced BudgetEnsures economic stability, if implemented successfully.Ensures that the government refrains from imprudent expenditures.Demerits of a Balanced BudgetUnviable at times of recession and does not offer any solution to problems such as unemployment.Inapplicable in less developed countries as it limits the scope of economic growth.Restricts the government from spending on public welfare. Surplus Budget: In this budget, estimated government revenues are higher than estimated government expenditures. It serves to reduce the state’s public debt or increase its savings. At times of inflation, a government can choose this budget type to reduce aggregate demand and achieve economic stability. It highlights a country’s approach to budget management, allocating resources prudently, and investing in future projects without borrowing.Features:Acts as a cushion during economic downturns.Can help in paying off existing debts. Deficit Budget: The estimated government revenue in this budget is below estimated government spending. the deficit budget does have its benefits – it can help stimulate economic growth, promote investments in infrastructure, or address critical needs.For nations like India, striving for growth, such a financial budget proves beneficial. By increasing spending, a government boosts demand, thus reviving economic growth. Another important aspect of this budget lies in job creation. Consequently, demand for goods and services soars.Merits of a Deficit BudgetHelps in addressing public concerns such as unemployment at times of economic recession.Enables the government to spend on public welfare.Demerits of a Deficit BudgetCan encourage imprudent expenditures by the government.Increases burden on the government by accumulating debts. Key Definitions of some other Various Terms: Fiscal Deficit is the difference between total expenditure and revenue receipts, recovery of loans & advances and other non-debt capital receipts. Revenue Deficit is the difference between Revenue expenditure and Revenue Receipts. Primary Deficit is Fiscal Deficit net of ‘Interest Payments and Debt Servicing’ under Revenue Component. Budget Deficit is the difference between total expenditure and total receipts and has to be zero in the absence of monetization. Governments have no access to the monetization route and as such Budget Deficit in their case ought to be zero. Miscellaneous Capital Receipts (MCR) are treated as Non-Debt Capital Receipts. Finance Bill consists the Government’s proposals for the imposition of new taxes, modification of the existing tax structure or continuance of the existing tax structure beyond the period approved by the legislature. Composition of Union Government The Union executive consists of the President, the Vice-President, and the Council of Ministers with the Prime Minister as the head to aid and advise the President.The three branches of the union government are charged with different responsibilities, but the constitution also provides a fair degree of interdependence.  

Monopoly শেয়ারে বিনিয়োগ করার আগে যেসব বিষয় মনে রাখা দরকার

প্রায়শই আমরা বিনিয়োগকারীদের মধ্যে “Monopoly Stocks” এর জন্য market এ প্রচুর আগ্রহ দেখতে পাই, অনেকেই তাদের পোর্টফোলিওতে Monopoly Stock ধরে রাখতে চায়। এই Monopoly Stock এর নামে বাজারে প্রচুর Craze রয়েছে তা ঠিক । তবে, অনেকেই না বুঝে ভুল স্টক বেছে নেয়।তাহলে, এই Monopoly Stock কি?কেন বিনিয়োগকারীরা Monopoly কোম্পানিগুলিকে Chase করতে থাকে? একটি কোম্পানি কখন Monopoly হয়ে ওঠে ?আপনি এই ব্লগটির  পড়ার মাধ্যমে আপনার সমস্ত Doubts Clear করতে পারেন।  এখানে আলোচিত সহজ উদাহরণ সহ Monopoly Stock সম্পর্কে একটি  পরিষ্কার ধারণা পেতে পারেন। Monopoly বলতে একটি Economic Situation কে বোঝায় যেখানে একটি Specific Company কোনো Specific Product Offerings Sector or Industry কে Dominate করে। Monopolies সাধারণত Free-market Capitalism যেটি সেই কোম্পানির উপর কোনো নিয়ম বা নিষেধের অনুপস্থিতির ফলে হয়।   এটি সাধারণত একটি কোম্পানি বা Conglomerate যা একটি Particular Type এর Product বা Service এর জন্য প্রায় পুরো বাজারে Large enough হয় ৷ Product এর মধ্যে Supplies, Infrastructure, Materials বা Services ইত্যাদি Included থাকবে। Monopoly শব্দটি এমন একটি Entity কে বোঝায় করে যেটির একটি Market এর অধিকাংশ বা সম্পূর্ণই একক ভাবে দখল করে আছে।এই ধরনের কোম্পানি গুলোর সাথে প্রতিযোগিতায় এঁটে ওঠা বা তাদেরকে চ্যালেঞ্জ করা নতুনদের পক্ষে বেশ মুশকিল। একচেটিয়া প্রায়ই  significant pricing power থাকে, তাদের মধ্যে তাদের Products & Services জন্য Higher Prices –র ব্যবসা করতে পারে। কিভাবে একটি কোম্পানি একটি Monopoly Position Achieve করতে পারে? একটি কোম্পানি বিভিন্ন উপায়ে Monopoly Position Achieve করতে পারে। একটি সাধারণ পদ্ধতি হল Competitor দের অধিগ্রহণ করা এবং Market এর Position Consolidate করা।  অন্য উপায় হল এর Technological Advantage বা Patent এর মাধ্যমে Market এ নিজেদের Position ধরে রাখা । বন্ধুরা  আমাদের INSIGNIA Program দেখতে পারেন যেখানে খুব সহজেই Monopoly stock সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে   Top চারটি Monopoly Companies সম্পর্কে সংক্ষেপে বিবরণ দেওয়া হল :  Indian Railway Catering and Tourism Corporation Ltd (IRCTC)  Coal India Hindustan Zinc Ltd (HZL) Hindustan Aeronautics Ltd (HAL) 1. Indian Railway Catering and Tourism Corporation Ltd (IRCTC):IRCTC হল ভারত সরকারের একটি Company যেটি Rail Sector এ কাজ করে ।  এই কোম্পানিটি 1999 সালে Incorporated হয়েছিল। এটিই একমাত্র কোম্পানি যা ভারতে রেলওয়ে স্টেশন এবং ট্রেনে অনলাইন রেল টিকিট, ক্যাটারিং পরিষেবা এবং Packaged Drinking Water সরবরাহ করার জন্য ভারত সরকার কর্তৃক অনুমোদিত। Online Ticketing এবং Catering ইন্ডাস্ট্রিস এ এটির একটি Dominant Market Position রয়েছে।Growth Factors:a) Union Budget 2022-23 এ railways এ Investment 27.5% বৃদ্ধি পেয়েছেb) আগামী বছরগুলিতে 400টির বেশি বন্দে ভারত ট্রেন চালু করা হবে৷c) ধর্মীয় ও তীর্থস্থান পর্যটন এবং ভ্রমণ খাতে Growth এর যথেষ্ট সম্ভাবনাd) Payment সিস্টেম এ Digitalization এর গ্রোথ কে ত্বরান্বিত করেছে।Important Developments:a) কোম্পানি বেশ কিছু হোটেল তৈরি করার পরিকল্পনা করছে।b) কোম্পানি Bill Payment, Recharge এবং Third-party Services যেমন Online Insurance Purchases এর জন্য Amazon, Flipkart, HDFC Life, etc. এর সাথে Partnership এ E-Marketplace এ প্রবেশ করছে৷c) কোম্পানির Online Payment Gateway iPay-এর মাধ্যমে Fintech কোম্পানি হিসেবে নিজেকে Diversify করেছে।d) Helicopter Travel, medical tourism ইত্যাদির মতো ভিন্ন Segment এ প্রবেশের পরিকল্পনা করছে ।e) Non-Rail based tourism যেমন Corporate Travel Business, Cruise, River packages, Air Tickets etc. এর মাধ্যমে নিজেদের Expand করার পরিকল্পনা করছে। 2. Coal India Limited:Coal India Limited একটি State-owned Coal Mining Company। এটি Coal  mining এবং Production এ যুক্ত এবং এদের Coal washeries ও আছে । কোম্পানির Major Consumers হল Ower এবং Steel sectors এ যুক্ত সংস্থা । অন্যান্য Sectors এর  মধ্যে রয়েছে Cement, Fertilizers, Brick Kilns ইত্যাদি। এটি বিশ্বের Largest Coal-producing Company গুলোর মধ্যে একটি এবং বর্তমানে Indian Coal Industry তে Dominant Market Position এ রয়েছে।Coal India Ltd  দেশের Coal Production কে লিড করে  যা দেশের সমগ্র কয়লা উৎপাদনের প্রায় 80% Contribute করে। মোট যত কয়লা পাঠানো হয় তার 80% Power Sector এ Supply হয়। Major Consumers:Coal India এর Major Consumer  হল Power sector (82% of the total output) এবং Steel sectors । অন্যদের মধ্যে রয়েছে Cement, Fertilizer, Brick, Kiln এবং  অন্যান্য Industry ।কোম্পানিটির দুটি Wholly Owned Subsidiaries আছে ,তারা হল CIL Solar PV Limited for Manufacturing of Solar Value Chain (Ingot-wafer-Cell Module) এবং  CIL Navikarniya Urja Limited যেটা  Renewable Energy নিয়ে ব্যবসা করে। Important Developments:এটি FY24 এর মধ্যে 3,000 MW Solar Project Install করার লক্ষ্য নিয়েছে৷ FY22 এ 240 MW কাজের Work order দেওয়া হয়েছে। উপরন্তু, এটি Coal Handling Plant এবং Silo বানানোর মাধ্যমে Fully Automated এবং Environment-friendly Coal Loading এ Focus করছে। 3. Hindustan Zinc Ltd (HZL):1966 সালে সংগঠিত, Hindustan Zinc এর Zinc- lead mining ও smelting এর ক্ষেত্রে পাঁচ দশকেরও বেশি সময় ধরে সমৃদ্ধ অভিজ্ঞতা রয়েছে। এটি একটি ভারতীয় খনি এবং ধাতু কোম্পানি যা দস্তা, সীসা এবং রৌপ্য উত্পাদন করে। ভারতের জিঙ্ক এবং সীসা শিল্পে এটির একটি Dominant Market Position রয়েছে এবং এটি বিশ্বের বৃহত্তম  integrated zinc producers এর মধ্যে একটি।কোম্পানিটি Vedanta Limited এর একটি Subsidiary যার 64.9% শেয়ার রয়েছে এবং বাকি 29.5% শেয়ার ভারত সরকারের মালিকানাধীন।Manufacturing Capabilities:কোম্পানির 1.2 MTPA খনন করা ধাতব ক্ষমতা(Mined Metal Capacity), 800 টন রৌপ্য পরিশোধন ক্ষমতা(Silver Refining Capacity) এবং 1.123 MTPA জিঙ্ক–লিড গলানোর ক্ষমতা (Zinc-lead Smelting Capacity) রয়েছে। কোম্পানির 448MT রিজার্ভ সহ 25 বছরের Long Mine Life রয়েছে।Strategic divestment by GOI:সরকার কোম্পানিতে তার সম্পূর্ণ শেয়ারহোল্ডিং (29.5%) বিক্রি করছে। এই সিদ্ধান্তটি 22 মে 2022 তারিখে Cabinet দ্বারা অনুমোদিত হয়েছিল। 4. Hindustan Aeronautics Ltd (HAL):Hindustan Aeronautics Limited ভারতের একটি State-owned Aerospace ও Defence Company। Hindustan Aeronautics বিমান ও হেলিকপ্টার Manufacture এবং মেরামত, বিমান ও হেলিকপ্টার Maintenance এর ব্যবসায় নিযুক্ত রয়েছে। HAL ভারতের Defense Program এ একটি কৌশলগত ভূমিকা পালন করে। এটি একমাত্র ভারতীয় কোম্পানি যা বিমান তৈরিতে বিশেষীকরণ এবং এর রক্ষণাবেক্ষণ এবং Related Services প্রদান করে।কোম্পানিটি বছরে মোট Revenue এর 6% থেকে 7% Research ও Development Activity তে ব্যয় করে এবং Sufficient R&D Reserve তৈরি করতে R&D Reserve গত বছর PAT-এর 10% থেকে 15% বৃদ্ধি পেয়েছে। HAL হেলিকপ্টার ইঞ্জিনের Development, Production, Sales এবং Support এর উদ্দেশ্যে একটি joint venture স্থাপনের জন্য Safran এর সাথে একটি MoU স্বাক্ষর করেছে এবং Civil Passenger Aircraft কে Multi-Mission Tanker Aircraft এ রূপান্তর করার জন্য 4 মার্চ 2022-এ IAI, Israel Aerospace Industries এর সাথে MoU স্বাক্ষর করেছে।Monopoly Stocks গুলির Comparison : আমাদের এই ব্লগটি ভালো লেগে থাকলে অবশ্যই SHARE করুন এবং Monopoly শেয়ার সম্পর্কে আপনার মতামত COMMENT করে অবশ্যই জানান আমাদের ।

Things to Know about  Monopoly Stocks before Investing

Often we see a lots of interest in the market for “Monopoly Stocks” among the Investors, many of them wants to hold Monopoly Stock in their portfolios. There is also a craze in the market in the name of Monopoly Stock and many of them choose the wrong One.SO, What is a Monopoly Stock?Why investors chase for Monopoly Companies? What Makes a Company Monopoly?You can Read this Blog & clear all you doubts and also get a clear idea about Monopoly Stock with simple examples below. A Monopoly refers to an economic situation where a specific company and its product offerings dominate a sector or industry.Monopolies usually result from the free-market capitalism and the absence of any restriction or restraints on that company. A single company or conglomerate grows large enough to become the owner of all or nearly all of the market for a particular type of product or service.A market for the product would include supplies, infrastructure, materials or services.Therefore the term monopoly signifies an entity that has complete or close to complete control of a market. Such companies usually have high barriers to entry, making it difficult for new players to enter the market and challenge their position. Monopoly businesses often have significant pricing power, means they can charge higher prices for their products & services. How could  A company can achieve a monopoly position? A company can achieve a monopoly position in several ways. One common method is by acquiring its competitors and consolidating its market position. Another way is by leveraging its technological advantage or patents to maintain its position in the market. You can visit our INSIGNIA program where INESMATE explains Monopoly Stocks quite easily to their students. Let’s take a brief look on Top Four Monopoly Companies:  Indian Railway Catering and Tourism Corporation Ltd (IRCTC)  Coal India Hindustan Zinc Ltd (HZL) Hindustan Aeronautics Ltd (HAL) Don’t’ worry, Read this BLOG & know all about Government Loan Schemes in Details: 1. Indian Railway Catering and Tourism Corporation Ltd (IRCTC):There are around 40 million registered and unregistered Micro Small and Medium Enterprises (MSMEs) in India. MSMEs can be classified as belonging to either the organized or unorganized sectors. These MSMEs continue to be an important source of employment and generate around 40% of India’s overall GDP. Critical national problems including poverty, unemployment, income inequality, regional imbalances, etc. are addressed by MSMEs. The government has introduced a number of programs to provide loans to MSMEs in order to strengthen their businesses and economies. A loan can be obtained by the business owners of these MSMEs through any of the programs that best meet their needs.Growth Factors:a) Investment in railways is increasedby 27.5 % in the Union Budget of 22-23b) 400 plus Vande Bharat trains to be introduced in coming yearsc) Growth prospects in tourism and travel sector including religious and pilgrimage tourismd) Digitalization of payment systemImportant Developments:a) Company is planning to build a chain of hotels.b) Company is entering into an e-marketplace with services like bill payment,recharges, and other third-party services like online insurance purchases, etc. in partnership with brands like Amazon, Flipkart, HDFC Life, etc.c) Diversification of IRCTC as a Fintech company through company’s online payment gateway iPayd) Plans to enter into segments like Helicopter Travel, medical tourism, etc.e) Plans to expand Non-Rail based tourism viz. corporate travel business, cruise, river packages, air tickets etc. 2. Coal India Limited:Coal India Limited is a state-owned coal mining company. It is mainly engaged in mining and production of Coal and also operates Coal washeries. The major consumers of the company are power and steel sectors. Consumers from other sectors include cement, fertilizers, brick kilns etc. It is one of the largest coal-producing companies in the world and has a dominant market position in the Indian coal industry.Coal India Ltd leads the country’s coal production contributing to around 80% of the Nation’s entire coal output. Its supplies to the power sector exceed 80% of its entire despatch. Major Consumers:Coal India’s major consumers are the Power sector (82% of the total output) and Steel sectors and others include cement, fertilizer, brick, kilns, and a host of other industries.The Co. incorporated two wholly owned subsidiaries viz. CIL Solar PV Limited for manufacturing of solar value chain (Ingot-wafer-Cell Module) and CIL Navikarniya Urja Limited for renewable energy.Important Developments:It is aiming at installing 3,000 MW Solar Projects by FY24. Work orders for 240 MW have been awarded in FY22. Additionally, it is focusing on fully automated and environment-friendly coal loading by setting up Coal Handling Plants and Silos. 3. Hindustan Zinc Ltd (HZL):Incorporated in 1966, Hindustan Zinc has a rich experience of more than five decades in Zinc- lead mining and smelting.It is an Indian mining and metals company that produces zinc, lead, and silver. It has a dominant market position in India’s zinc and lead industries and is one of the world’s largest integrated zinc producers.Company is a subsidiary of Vedanta Limited which owns 64.9% stake in it and balance 29.5% stake is owned by Government of India.Manufacturing Capabilities:The co. has 1.2 MTPA mined metal capacity, of 800 tonnes silver refining capacity & 1.123 MTPA Zinc-lead smelting capacity.Company has long mine life of 25 years with 448MT reserves .Strategic divestment by GOI:Government is selling its entire shareholding (29.5%) in the co. This decision was approved by the cabinet on 22 May 2022. 4. Hindustan Aeronautics Ltd (HAL):Hindustan Aeronautics Limited is a state-owned aerospace and defence company in India. Hindustan Aeronautics is engaged in the business of Manufacture of Aircraft and Helicopters and Repair, Maintenance of Aircraft and Helicopters.HAL plays a strategic role in India’s defense program being the only Indian company having specialization in aircraft manufacturing and providing its Maintenance and related services. Company spends6% to 7% of the total revenue into the research and development activity annually and increased R&D reserve from 10% to 15% of PAT last year to build a sufficient R&D reserve. HAL has signed an MoU with Safran to set up a joint venture intended for development, production, sales and support of helicopter enginesMoU with the IAI, Israel Aerospace Industries on 4 March 2022 to convert the civil passenger aircraft to multi-mission tanker aircraft.Comparison of these 4 Monopoly Stocks: Please SHARE the BLOG and let us know your opinion about Monopoly Stock by COMMENTING.

ভারতের বিভিন্ন সরকারী লোন ব্যবস্থা

যদি ধরুন আপনি আপনার best effort দিয়ে অনেক research এর পরে একটি business project তৈরী করেছেন, যা ভবিষ্যতে একটি Master plan হিসাবে বিবেচিত হতে পারে, তবে সেক্ষেত্রে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যে বিষয়টি নিয়ে আপনি এখন চিন্তা করবেন তা হল ঋণ বা loans।আমরা যে কোনো ধরনের capital required business শুরু করার  আগে, প্রথমেই যে জিনিসটি আমাদের মাথায় আসে  তা হল কোথা থেকে Fund জোগাড় করা যায়? বা আমি কিভাবে ঋণ পেতে পারি?ভারতে  এখন বিভিন্ন ধরনের  সরকারী ব্যবসায়িক ঋণ প্রকল্প চালু  হয়েছে যা  নাগরিকদের সুবিধা দেওয়ার জন্য যেকোনো  catagory তে সম্পূর্ণ  coverage দিতে সাহায্য করছে।  ব্যবসায়িক উদ্দেশ্য হোক বা ব্যক্তিগত  কারণে  আমাদের বিভিন্ন ধরনের প্রয়োজনীয়তা পূরণের জন্য সঠিক তথ্যের অভাবে আমরা প্রায়শই higher rate of interests এ ব্যাঙ্ক থেকে  loan নিয়ে ফেলি, যেখানে  এখন আমাদের সুবিধার জন্য কম সুদের হারে অনেক সরকারি ঋণ প্রকল্প  ইতিমধ্যেই রয়েছে।তবে চিন্তার কোন কারণ নেই,  এই Blog টি থেকেই আপনি সরকারি ঋণের প্রতিটি স্কিম সম্পর্কে বিস্তারিত ভাবে জানতে পারবেন-  সরকারী Business Loans:আপনি একটি start-up কে bootstrap করতে চান বা আপনার বর্তমানে যে ব্যবসাটি আছে সেটাকে যদি আপনি grow up করাতে চান, তাহলে আপনার সেক্ষেত্রে অবশ্যই consistent cash flow এর প্রয়োজন হবে। এখানেই business loans বা corporate loans দুটোই কার্যকর হয় এবং একটি business loans আপনাকে আপনার কোম্পানির জন্য প্রয়োজনীয় মূলধন পেতে যথাযথ সহায়তা করবে। দেশে fintech এর সাম্প্রতিক spike অনুযায়ী অনেক private lenders রা business loans প্রদান করতে আগ্রহী, কিন্তু ভারত সরকারও তার বিভিন্ন সংস্থার মাধ্যমে ব্যবসার মালিকদের বিভিন্ন ধরনের lending programs অফার করে চলেছে । সরকারি সংস্থাগুলি ব্যবসার মালিকদের প্রতিযোগিতামূলক সুদের হারে ঋণ প্রদান করে এবং যা প্রায়ই প্রদান করা হয় কোনো প্রকার security deposit ছাড়া।সরকারী Business Loans সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য :ভারতে প্রায় 40 মিলিয়ন registered এবং unregistered Micro Small এবংMedium Enterprises (MSMEs) আছে। MSMEগুলিকে organized বা unorganized sectors গুলির অন্তর্গত হিসাবে শ্রেণীবদ্ধ করা যেতে পারে। এই MSMEগুলি কর্মসংস্থানের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ উৎস এবং ভারতের সমগ্র GDPর প্রায় 40% এই সংস্থাগুলি থেকে আসে। দারিদ্র্য, বেকারত্ব, আয় বৈষম্য, আঞ্চলিক ভারসাম্যহীনতা ইত্যাদি সহ গুরুতর জাতীয় সমস্যাগুলি MSME দ্বারা সমাধান করা হয়। সরকার ইতিমধেই এই MSMEগুলিকে তাদের ব্যবসা ও অর্থনীতিকে শক্তিশালী করার তাগিদে ঋণ প্রদানের জন্য বেশ কয়েকটি কর্মসূচিও চালু করেছে। এই MSMEগুলির ব্যবসার মালিকরা তাদের চাহিদাগুলি সম্পূর্ণভাবে পূরণ করে এমন কোনও প্রোগ্রামের মাধ্যমে যেখানে ঋণ পাওয়া খুব সহজ হয়ে যায়।সরকারি Business Loansউদ্দেশ্যঃMicro, Small. ও Medium Enterprises (MSME) এবং অন্যান্য business enterprises গুলি ভারত সরকার প্রতিষ্ঠিত business loan programs এর মাধ্যমে সব ধরনের মূলধন access করতে পারবে। তাদের চাহিদার উপর নির্ভর করে উদ্যোক্তারা বিভিন্ন ধরনের financing programs বেছে নিতে পারবেন। ব্যবসায়িক সংস্থাগুলির কাছে নিজেদের প্রয়োজনের স্বার্থে যেকোনো optimal credit program নির্বাচন করার বিকল্প রয়েছে। বর্তমানে ভারত সরকারের digital technologyতে অগ্রগতির জন্য এইপ্রোগ্রামগুলির বেশিরভাগই এখন অনলাইনে অ্যাক্সেসযোগ্য হয়ে উঠেছে। সরকারি Business Loans প্রোগ্রামের প্রাথমিক লক্ষ্য হল business ownersদের ongoing operations এর জন্য fund জোগাড় করার ক্ষেত্রে সহায়তা করা, এগুলি ব্যবসার প্রয়োজনীয়তা মেটাতে specially designed করা হয়েছে।Top 6 গভর্নমেন্ট Business Loan Scheme: ভারত সরকার কর্তৃক প্রদত্ত  কিছু শীর্ষস্থানীয় গভর্নমেন্ট Business Loan Scheme এর  নিম্নরূপ দেওয়া হল – যেমন – MSME Loan SchemeMUDRA Loan Credit Guarantee Fund SchemeNational Small Industries Corporation SubsidySIDBI LoanUdyoginiMSME লোন স্কিম:  ভারত সরকার MSME সেক্টরে ব্যবসার কার্যকারী মূলধনের চাহিদার উপর মনোনিবেশ করার জন্য MSME Business Loan Scheme শুরু করেছে। MSME স্কিমের ক্ষেত্রে নতুন বা পুরানো যেকোনো ব্যবসায় আর্থিক সহায়তায় ১ কোটি টাকা পর্যন্ত ঋণের জন্য আবেদন করতে পারে। একটি Loan application দেওয়ার  পর লোনটি  অনুমোদন বা প্রত্যাখ্যান হয়েছে কিনা সেটা আবেদনের প্রথম 59 মিনিটের মধ্যে জানা যাবে, এবং লোনটির  প্রক্রিয়াকরণ সম্পূর্ণ হতে 8-12 দিন সময় লাগে। MSMEলোন স্কিমে মোট প্রাপ্ত ঋণের women entrepreneur দের জন্য 3% preference দেওয়া হয়, উপরন্তু women business owner দের ক্ষেত্রে লোন অনুমদিত হওয়ার প্রক্রিয়া  আরও সহজ হয়।MUDRA লোন: Micro-Units Development and Refinance Agency organization সংস্থা, যা ভারত সরকার MUDRA লোন অনুমোদনের মাধ্যমে micro-businessএর  ইউনিটগুলিতে অর্থ প্রদানের উদ্দেশ্যে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল।Small enterprises  এবং start-upsগুলি মাইক্রো ইউনিট ডেভেলপমেন্ট অ্যান্ড রিফাইন্যান্স এজেন্সির ( MUDRA) fund program থেকে low-cost credit এর মাধ্যমে আর্থিক সহায়তা পেতে পারে। MUDRA লোন প্রধানত উৎপাদন, বাণিজ্য বা পরিষেবা প্রদানে নিযুক্ত micro বা small firms গুলিকে দেওয়া হয়ে থাকে। সরকারি ও বেসরকারি ব্যাঙ্ক, cooperative societies, স্থানীয় ব্যাঙ্ক, scheduled commercial banks, এবং গ্রামীণ এলাকার যেকোনো ব্যাঙ্কই MUDRA লোনের জন্য আবেদন গ্রহণ করে থাকে। বিশেষত commercial entityএর ক্ষেত্রে MUDRA লোন প্রোগ্রামে apply করার জন্য তিনটি বিকল্প রয়েছে। MUDRA লোনগুলি নিম্নলিখিত বিভাগে পড়ে:-S. No.Category of LoanAmount1Shishu LoansUp to Rs. 50,0002Kishor Loans50,000 to 5,00,0003Tarun Loans5,00,000 to 10,00,000MUDRA লোনের জন্য প্রয়োজনীয় যোগ্যতা : proprietary enterprises, partnership firms, প্রাইভেট লিমিটেড কোম্পানি, বেসরকারি কোম্পানি, বা অন্যান্য আইনি সংস্থাগুলি সহ যেকোনো কোম্পানি এই loan টির জন্য আবেদন করতে পারে।ক্রেডিট গ্যারান্টি ফান্ড স্কিম: ভারত সরকার ক্রেডিট গ্যারান্টি স্কিম চালু করেছে প্রধানত MSME সেক্টরের অন্তর্গত  enterprisesগুলি্কে লোনের মাধ্যমে আর্থিকভাবে সক্ষম করে তোলার জন্যে। নতুন এবং যেকোনো existing businessesই এই  প্রোগ্রামের  আয়ত্তের মাধ্যমে পরে। MSME এবং ক্ষুদ্র শিল্প মন্ত্রক CGFMSE প্রোগ্রাম বাস্তবায়নের লক্ষ্যে একটি ক্রেডিট গ্যারান্টি ফান্ড ট্রাস্ট প্রতিষ্ঠা করেছে। প্রায় Rs.200 লক্ষ টাকা পর্যন্ত  Working capital loans উপলব্ধ করা হয়  এই প্রোগ্রামের অধীনে , যা women business owners দের বেশি প্রযোজ্য। ক্রেডিট গ্যারান্টি ফান্ড স্কিমের জন্য প্রয়োজনীয় যোগ্যতা : প্রধানত organization গুলি নিযুক্ত থাকে manufacturingএর ক্ষেত্রে, যেমন খুচরা বিক্রেতা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, self-help organizations, এবং বিভিন্ন প্রশিক্ষনের সুবিধা দেওয়ার ব্যাপারে। National Small Industries Corporation Subsidy: NSIC হল একটি ISO-certified government উদ্যোগ যা MSMEs বিভাগের মধ্যেই পড়ে। এর প্রধান দায়িত্বগুলির মধ্যে একটি হল financing করা,  technology এর উন্নতি, market, এবং অন্যান্য পরিষেবার ক্ষেত্রে যথাযথ পরিষেবা প্রদানের মাধ্যমে দেশ জুড়ে MSME-এর সম্প্রসারণকে সমর্থন করা। এই প্রোগ্রামটির সুবিধা হল যে এটি ছোট ব্যবসাগুলিকে free access দিয়ে রাখে বিভিন্ন opportunities গুলিকে সহজেই গ্রহণ করার জন্য বা সেগুলিকে সদ্ব্যবহার করার ক্ষেত্রে, এবংMSMEsকে এই প্রোগ্রামটিকে ব্যবহার করার জন্য  কোনো রকম security deposits আগে থেকে payment করতে হবে না।NSIC আরও দুটি প্রোগ্রাম চালু করেছে MSME এর এই ক্রমশ বৃদ্ধিকে উৎসাহিত করার জন্য, যেগুলো নিম্নরূপ:Marketing Support Scheme: বিশেষত The Marketing Support Scheme Consortia এবং Tender Marketing এর মতো পরিকল্পনার মারফত যেকোনো business এর উন্নতিতে সহায়তা করে। Credit Support Scheme: NSIC কাঁচামাল সংগ্রহ, marketing activities, এবং financing এর জন্য ব্যাঙ্ক সিন্ডিকেশনের মাধ্যমে MSME-কে অর্থ প্রদান করে।SIDBI Loan: MSME সেক্টরে businesses ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় fund পূরণ করার জন্য SIDBI, বা ভারতের Small Industries Development Bank 1990 সালে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। SIDBI NBFC কে (Non-Banking Financial Companies) এবং SFB (Small Finance Banks) কে পরোক্ষভাবে loan প্রদান করে থাকে এবং পাশাপাশি MSME-কে directly loan প্রদান করে থাকে। এই loan পরিশোধের সময়সীমা 10বছর পর্যন্ত হতে পারে এবং লোনের পরিমাণ 10 লাখ থেকে 25 কোটি টাকা পর্যন্ত হতে পারে। তবে আপনি কোনরকমের security deposit না করেই 1 কোটি পর্যন্তও লোন পেতে পারেন।ব্যাঙ্কের বিভিন্ন lending programs থাকে, যেমন SIDBI- Enterprise Development (SPEED) এর জন্য সরঞ্জাম কেনার জন্য ঋণ দেওয়া, SIDBI Make in India Soft Loan Fund for MSME (SMILE), Smile Equipment Finance (SEF), এবং অন্যান্য ক্ষেত্রে MSME তে লোন পাওয়ার জন্য আবেদন করা যেতে পারে। প্রতিটি লোনের প্ল্যানের ভিন্ন প্রকৃতির সময়সীমা, loan amount, এবং eligibility requirements রয়েছে। অসংখ্য ঋণ প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান এখন MSME-এর জন্য বিশেষ ঋণ পণ্য সরবরাহ করে কারণ ভারতে MSME-এর সংখ্যা ধারাবাহিকভাবে বাড়ছে। আপনি Bajaj Markets-এ আপনার কোম্পানির জন্য SME ঋণের জন্য আবেদন করতে পারেন, যেখানে সুদের হার competitively increase করে। আপনি Bajaj Market app থেকে চটজলদি SME loan এর জন্যে apply করতে পারবেন এবং এখানে আপনি pre-approved deal গুলো সম্পর্কেও জানতে পারবেন।মহিলাদের জন্যে বিশেষ Udyogini Scheme: ভারতীয় মহিলাদের ক্ষমতায়নের জন্য সরকারের তরফ থেকে ‘উদ্যোগিনী’ (Udyogini) নামে একটি প্রোগ্রাম শুরু করেছে, জার অর্থ হলো “নারী ক্ষমতায়ন” ( “women empowerment”) । ভারত সরকারের পক্ষ থেকে Women Development Corporation প্রধানত মহিলা উদ্যোক্তাদের জন্য এই উদ্যোগিনী স্কিমটি চালু করেছে৷ এই কর্মসূচীর অধীনে প্রদত্ত নগদ অর্থ বিশেষ করে নারীদের ব্যবসা শুরু করার জন্য প্রয়োজনীয় মূলধন হিসেবে দেওয়া হয়ে থাকে।এই স্কিমের নিয়ম অনুযায়ী 15,00,000 টাকা পর্যন্ত লোন নেওয়া যেতে পারে। একজন women entrepreneurs 18 থেকে 55 বছর বয়সের মধ্যে হলেই তবেই এই প্রোগ্রামটিতে আবেদন করতে পারবেন এবং তার পরিবারের Annual income 15,00,000Rs-এর বেশি হলে কখনোই চলবে না।যেসব মহিলা শারীরিকভাবে অক্ষম বা widow বা যাদের আয়ের কোনো সীমাবদ্ধতা নেই, তাদের এই পরিকল্পনার অধীনে প্রাপ্ত ঋণের জন্য কোনো processing charge বা কোনো security deposit দিতে হবে না। প্রত্যেক মহিলাদের অতিঅবশ্যই passport-sized ছবি সহ, birth certificates, Poverty Line কার্ড, Aadhar Cards, Caste Certificates, passbooks or bank accounts, ration cards, এবং income documentation সমস্ত নথি জমা করতে হবে। যোগ্য মহিলারা সকলেই 88টি ভিন্ন ধরণের enterprises এর ওপর লোনের জন্য আবেদন করতে পারবেন।আমাদের এই ব্লগটি ভালো লেগে থাকলে অবশ্যই শেয়ার ও কমেন্ট করুন।

Government Loan Schemes In India

Suppose you’ve created a Business Project after a lot of research by giving best of your effort, which may consider as master plan. But the most important thing you will worry about now is funding or loans.Before we start any kind of capital required business, the first thing that strikes us is where to get funding from? Or how can I get loan?There are lots of Government Business Loan Scheme available in India covering almost each & every category to support their citizens. To fulfil our various kind of requirements either business purpose or personal, we often borrow from banks at higher rate of interests due to lack of information. While there are many Government Loan Schemes available at lower rate of interest for our convenience.Don’t’ worry, Read this BLOG & know all about Government Loan Schemes in Details: Government Business Loan:You will always need a consistent cash flow, regardless of whether you want to bootstrap a start-up or grow your current business. This is where business loans or corporate loans come into play, and a business loan can assist you in obtaining the necessary capital for your company. Considering the recent spike in fintech in the nation, many private lenders are eager to provide business loans, but the Indian government also offers a variety of lending programs to business owners through its various agencies. Government agencies provide business owners with loans at competitive interest rates and frequently even without any type of collateral. About Government Business Loan:There are around 40 million registered and unregistered Micro Small and Medium Enterprises (MSMEs) in India. MSMEs can be classified as belonging to either the organized or unorganized sectors. These MSMEs continue to be an important source of employment and generate around 40% of India’s overall GDP. Critical national problems including poverty, unemployment, income inequality, regional imbalances, etc. are addressed by MSMEs. The government has introduced a number of programs to provide loans to MSMEs in order to strengthen their businesses and economies. A loan can be obtained by the business owners of these MSMEs through any of the programs that best meet their needs. Government Business Loan ObjectiveMicro, Small and Medium Enterprises (MSMEs) and other business enterprises can access capital through business loan programs that the Indian government has established. Depending on their demands, entrepreneurs can choose from a variety of financing programs. Business entities have the option of selecting the optimal credit program for their needs. The majority of these programs are now accessible online thanks to the government of India’s advancements in digital technology. The primary goal of Government Business Loan programs is to provide funding assistance to business owners for their ongoing operations. They are designed expressly to meet the requirements of businesses. Top 6 Government Business Loan SchemeSome of the top Government Business Loans offered by the Indian Government are as follows:MSME Loan SchemeMUDRA LoanCredit Guarantee Fund SchemeNational Small Industries Corporation SubsidySIDBI LoanUdyogini MSME Loan Scheme The Government of India started the MSME Business Loan Scheme to concentrate on the working capital needs of businesses in the MSME sector. Under the MSME scheme, any business new or old can apply for loans for financial support of up to Rs. 1 crore. While the approval or rejection of a loan application is given within the first 59 minutes of the application, the loan processing takes 8–12 days to complete. The MSME Loan Scheme’s biggest feature is that you can acquire a loan at 8% ROI, which makes loan payments simpler. For loans obtained through the MSME Loan Scheme, women entrepreneurs are given a 3% preference. Additionally, the loan approval process is also generally simpler for women business owners. MUDRA Loan The Micro-Units Development and Refinance Agency organization, which was founded by the government of India for the purpose of providing money to units of micro-business, approves the MUDRA loans. Small enterprises and start-ups can receive financial support in the form of low-cost credit through the Micro Units Development and Refinance Agency (MUDRA) funding program. MUDRA loans are primarily given to micro or small firms engaged in manufacturing, trade, or providing services. Banks in the public and private sectors, cooperative societies, local banks, scheduled commercial banks, and rural areas all accept applications for MUDRA Loans. A commercial entity has three options for applying to the MUDRA loan program. The MUDRA loans fall into the following categories: S. No. Category of Loan Amount 1 Shishu Loans Up to Rs. 50,000 2 Kishor Loans 50,000 to 5,00,000 3 Tarun Loans 5,00,000 to 10,00,000 Eligibility Criteria for MUDRA Loan Any company may apply for a loan under this program, including proprietary enterprises, partnership firms, Private Ltd., Public Companies, and other legal entities Credit Guarantee Fund Scheme The Indian government has introduced Credit Guarantee Scheme that enables funding for enterprises that are part of the MSME sector through unsecured loans. Both new and existing businesses may be offered loans under the program. The Ministry of MSMEs and Small Industries established the Credit Guarantee Fund Trust as a trust with the goal of implementing the CGFMSE program. Working capital loans of up to Rs. 200 lakhs may be made available under this program, with preference given to qualified women business owners. Eligibility Criteria for Credit Guarantee Fund Scheme The organizations engaged in manufacturing, such as retailers, educational institutions, self-help organizations, and training facilities. Additionally, companies in the service sector are also eligible to apply for funding under this loan program. National Small Industries Corporation Subsidy The NSIC is an ISO-certified government enterprise that falls within the MSMEs category. One of its main responsibilities is to support the expansion of MSMEs across the nation by offering services in the areas of financing, technology, market, and other services. The advantage of this program is that it gives small businesses free access to bid opportunities, and MSMEs do not have to pay security deposits to use this program’s financial aid options. The NSIC has launched two programs to encourage the expansion of MSMEs, which are as follows: Marketing Support Scheme: The Marketing Support Scheme helps any business flourish by coming up with plans like Consortia and Tender Marketing. A program like this is essential since MSMEs need assistance to expand in the current cutthroat economy. Credit Support Scheme: The NSIC offers finance to MSMEs through bank syndication for raw material procurement, marketing activities, and financing. SIDBI Loan In order to meet the funding requirements of businesses in the MSME sector, SIDBI, or the Small Industries Development Bank of India, was established in 1990. SIDBI offers indirect lending programs to NBFCs (Non-Banking Financial Companies) and SFBs (Small Finance Banks) in addition to direct loan programs to MSMEs. The loan term may be up to 10 years, and the loan amount may range from 10 Lakhs to 25 Crores. You can obtain loans up to Rs. 1 crore without putting up any security.The bank’s different lending programs, such as SIDBI-lending for Purchase of Equipment for Enterprise Development (SPEED), SIDBI Make in India Soft Loan Fund for MSME (SMILE), Smile Equipment Finance (SEF), and others, allow MSMEs to apply for loans. Each loan plan has a different loan tenure, loan amount, and eligibility requirements. Numerous lending institutions now provide special loan products for MSMEs because the number of MSMEs is consistently increasing in India. You can apply for a SME loan for your company at Bajaj Markets, where the interest rates are competitive. You may quickly apply for SME loans through the Bajaj Markets app, and you can even find pre-approved deals there. Udyogini Scheme for Women A program called Udyogini, which means “women empowerment,” has been started to empower Indian women. The Women Development Corporation, on behalf of the Government of India, launched the Udyogini Scheme for Women Entrepreneurs. The cash provided under this program is given to assist women in obtaining the capital they need to launch a business. Under this program, a loan can only be given up to Rs. 15,00,000. A woman entrepreneur must be between the ages of 18 and 55 in order to be eligible to apply for this program, and her family’s annual income cannot exceed Rs. 15,00,000.Women who are physically disabled or widowed have no income restrictions. For a loan to be obtained under this plan, there is no processing charge or requirement for collateral. In order to be eligible for the loan, women must provide passport-sized photos, birth certificates, Below Poverty Line Cards, Aadhar Cards, Caste Certificates, passbooks or bank accounts, ration cards, and income documentation. Qualified women can apply for loans for the 88 different types of enterprises listed.Hope you benefited from the given information in this blog.If you Like our Informative Blog then please Comment and Share.